Home / CURRENT WORLD / পাকিস্তানকে ছাড় না দিয়ে নতুন আক্রমণের পথে ভারত। এবার কী পরিকল্পনা ভারতের?

পাকিস্তানকে ছাড় না দিয়ে নতুন আক্রমণের পথে ভারত। এবার কী পরিকল্পনা ভারতের?

উরি হামলার প্রত্যাঘাত হয়ে গিয়েছে। নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করেছে ভারতীয় সেনা। এবার পরবর্তী আক্রমণের পরিকল্পনাও চূড়ান্ত বলে খবর। উরিতে পাকজঙ্গিরা ভারতের সেনাঘাঁটিতে হামলা করেছে। জবাবে ভারতও পাক জঙ্গিঘাঁটি বিধ্বস্ত করে দিয়েছে। এর পরে আগ বাড়িয়ে কোনও সামরিক পদক্ষেপের কথা না ভাবলেও পাকিস্তানকে ছেড়ে দিতে রাজি নয় ভারত। এমনই পরিকল্পনা করেছে দিল্লি। পাকিস্তানকে কোণঠাসা করতে বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে জঙ্গিঘাঁটি ধ্বংস করলেই যে পাকিস্তানের মাটিতে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ বন্ধ হয়ে যাবে, এমনটা ভাবছে না দিল্লি। বরং, জঙ্গি মদত আরও বাড়াতে পারে পাকিস্তান। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানকে কোণঠাসা করাই ভারতের লক্ষ্য। এই লক্ষ্য মাথায় রেখেই একগুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্র। দেখে নেওয়া যাক, সামরিক অভিযান ছাড়াও কী কী করতে পারে ভারত।

Loading...

আপাতত পাকিস্তানকে অর্থনৈতিকভাবে বিপাকে ফেলার পরিকল্পনা রয়েছে। এমনিতেই পাকিস্তানের অর্থনীতি বিপর্যস্ত। যথেষ্টই সঙ্কটে নওয়াজ শরিফ সরকার। দেশের পরিকাঠামোগত খরচ চালানো, প্রতিরক্ষার খরচ চালানো মুশকিলের। সেই সঙ্গে পাকিস্তান সরকারের বাড়তি খরচ রয়েছে জঙ্গিদের অর্থ ও অস্ত্র জোগানোর জন্য। বিদেশ থেকে পাওয়া সহায়তার অর্থেই নাশকতায় মদত দেয় পাকিস্তান। এখন সেই অর্থ জোগাতে গেলে দেশের উন্নয়ন থমকে যাবে। এমনিতেই পাকিস্তানে পরিকাঠামোগত উন্নয়নের থেকে প্রতিরক্ষা ও জঙ্গি-মদতে বেশি খরচ হয়। পাক সরকারকে অর্থনৈতিকভাবে আরও কোণঠাসা করতে পারলে দেশ-চালানো, জঙ্গি-চালানো দুই ক্ষেত্রেই বিপাকে পড়বে পাকিস্তান।

ভারত তাই চেষ্টা করবে যাতে বিদেশি সাহায্য কমে যায়। ইতিমধ্যেই বিশ্বর দরবারে পাকিস্তানের ভাবমূর্তি তলানিতে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে সাফল্য দেখিয়েছে ভারত। বিদেশি সাহায্য আগামী দিনে আরও কমবে। ফলে ইসলামাবাদ আরও সমস্যায় পড়বে বলেই মনে করছে দিল্লি।

পাকিস্তানের অর্থনৈতিক হাল আরও খারাপ করার জন্য ব্যবসায়িক সম্পর্কও বন্ধ করে দিতে পারে ভারত। একই সঙ্গে অন্যান্য দেশের সঙ্গেও যাতে পাকিস্তানের আমদানি, রফতানি সম্পর্ক কমাতেও উদ্যোগ নিতে পারে ভারত। ভারতে পাকিস্তান থেকে বস্ত্র, শুকনো ফল ও মশলা আসে। এই সবের আমদানিও বন্ধ করে দিতে পারে ভারত সরকার। তাতে পাকিস্তানের বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের বড় উৎস মুখ থুবড়ে পড়বে।

ইতিমধ্যেই এটা স্পষ্ট যে, কূটনৈতিকভাবে পাকিস্তানকে একঘরে করে দেওয়ার নীতি নিয়েছে ভারত সরকার। সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর হিসেবে পাকিস্তানের ভাবমূর্তি গোটা বিশ্বের কাছেই প্রতিষ্ঠিত। ইতিমধ্যেই মার্কিন সেনেটে পাকিস্তানকে ‘সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্র’ ঘোষণার দাবি উঠেছে। এইভাবে পাকিস্তান সম্পর্কে বাকি দুনিয়ার ধারণা খারাপ করার জন্য আরও উদ্যোগী হতে পারে দিল্লি।

এখানেই শেষ নয়, ভারত পাকিস্তানের ভিতরে রাজনৈতিক অস্থিরতায় মদত দিতে পারে। পাক মাটিতে জিইয়ে রাখতে পারে অশান্তি।

Check Also

ভারতের ট্যাংক মোতায়েনের প্রস্তুতি পাকিস্তান সীমান্তে

পরমাণু হামলার হুমকির পর পাকিস্তান সংলগ্ন সীমান্তে শত শত ট্যাংক মোতায়েনের প্রস্তুতি নিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। …

One comment

  1. পাকিস্তানকে ছেড়ে দিতে রাজি নয় ভারত-ভারত পাকিস্তানকে কিছু করতে পারলে অনে করত । ভারত পারবে দাৎলাদেশ -নেপাল-ভুটান
    -এদের সাথে ।সোশাল মিডিয়ায় দেখা যায় ভারতের B-S-F-বাঙ্গালি মেরা নাচ গান করে ভিডিও আপলোড করে আমরা বাংঙ্গালিরা কত মজা পাই ।, ভারত পাকিস্তানের ভিতরে হামলা করবে এটা গোলাপি মিডিয়ার দারনা -আমাদের মুসলিমরা ভারতের পক্ষ কেন নেয় আমি বুজিনা -পাকিস্তানের সাথে ১৯৭১ সালে যুদদ হওয়ার কারনে -পাকিস্তানের সাথে ১৯৭১ সালে যুদদ টা একটা ভুল ছিল বেশী কথা বলা যাবেনা ।।।
    মুসলিম দের বাভা দরকার ৷মুসলিম বনাম অমুসলিম
    মুদির-সুর=পাকিস্তানের জঙ্গিঘাঁটি ধ্বংস করছে ভারতীয় সেনা। মুদির-সুর=চলে নাই ।।
    বাংলাদেশের -সুর -জঙ্গি দমনের নামে বিরুদী দল দমন ।।বাংলাদেশের -সুর -চলছে ।।

Leave a Reply

Your email address will not be published.