Home / STORY LESSON / ভালবাসার নাকি সময়ের মূল্য …………… ?

ভালবাসার নাকি সময়ের মূল্য …………… ?

একটি সত্য ঘটনা।
আমার সকল বন্ধুদের প্রতি পুরোটা পড়ার অনুরোধ রইল। আরেক জনের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাটি নিজের মত করে গুছিয়ে লেখার চেষ্টা করেছি। ঘটনাটি ঘটেছে, কাপাসিয়া, গাজীপুর।

আজ অনেকদিন রাসেলকে দেখিনা, কতদিন তা মনে নেই। তবে হঠাৎ করেই আজ তার দেখা মিলল। ওর সাথে কথা বলে জানতে পারলাম, ও একটি মেয়ের পিছনে এক বছর ধরে ঘুরঘুর করছে কিন্তু মেয়েটি পাত্তা দিচ্ছেনা। তো আমি বললাম আমাকে মিষ্টি খাওয়ার জন্য এক হাজার টাকা দিবি আমি একদিনেই ব্যাবস্থা করে দেব। রাসেলতো তখনই রাজী এবং এক হাজার টাকা অগ্রীম পরিশোধ করল।

রাসেলকে সাথে নিয়েই মেয়ের স্কুলে যাওয়ার রাস্তায় বসে রইলাম, এক সময় পেয়েও গেলাম। দুই বান্ধবীকে সাথে নিয়ে আসতেছে। আমি গিয়ে পথ আগলে দাড়ালাম। এবং প্রশ্ন ছুড়ে দিলাম, কি ব্যাপার? রাসেল তোমার পিছনে আজ এক বৎসর ঘুরাঘুরি করছে, তুমি ওকে পাত্তা দিচ্ছনা কেন? মেয়েটি বলল ভাইয়া আমি এখন লেখাপড়া করব, এস এস সি পরীক্ষার আগে আমি প্রেম করতে পারবনা। আমি বললাম ভাল কথা, এখন কিসে পড়ো, মেয়েটি বলল, নাইনে। আমি রাসেলকে ডেকে আনলাম। এই রাসেল তুই ওকে আর ডিস্টাব করবিনা, এস এস সি পরীক্ষা দেওয়ার পড়ে ও তোকে ভালবাসবে, আরো এক বৎসর তোকে ধৈর্য ধরতে হবে। রাসেল বলল আচ্ছা ঠিক আছে, তবে আমি শুধু প্রতিদিন ওকে একবার করে দেখে যাব।
মেয়েটি আমাকে বলল, ভাইয়া আপনার ফোন নাম্বারটা দিন, আজ থেকে আপনি আমার ভাই, আমি নাম্বার দিয়ে রাসেলকে নিয়ে চলে এলাম।

রাতে অপরিচিত নাম্বার থেকে মিসকল পেয়ে ফোন দিলাম, ঐ মেয়েটি বলল ভাই কেমন আছেন? আমি বললাম ভাল।
এক পর্যায়ে মেয়েটি আমাকে প্রশ্ন করল ভাই, রাসেল ছেলেটা কেমন?
আমি বললাম দেখো, কারও মনের খবর আমি জানিনা, তবে এমনিতে চলাফিরায়, রাসেল ছেলেটা খারাপনা ভালই। তখন মেয়েটি বলল, ভাই আমিও রাসেলকে পছন্দ করি, তবে রাসেল আমাকে আজ পর্যন্ত কিছু বলেনি, শুধু ঘুরাঘুরি করছে। আপনি রাসেলকে বলে দিবেন ও যেন নিযে থেকে কালকে আমাকে বলে।

জমে ওঠেছে ওদের প্রেম, মেয়েটিও দেখতে সুন্দর, ক্লাসে রোল নং দুই।
তিনমাস পরে একদিন রাসেল আমাকে ফোনদিল। গেলাম গিয়ে দেখি মেয়ে সহ রাসেল টিকেট হাতে আমার জন্য দাড়িয়ে আছে, ছবি দেখবে। ছবি দেখার এক পর্যায়ে চোখ পড়ল রাসেল এর দিকে। রাসেল মেয়েটিকে জড়িয়ে ধরে কিসব করছে, আমি লজ্জায় সিনেমা হল থেকে বের হয়ে চলে আসলাম, রাসেল আমাকে বন্ধু ভাবলেও মেয়েটিতো আমাকে ভাই বলেছে।

এর এক মাস পর মেয়েটি আমাকে ফোন করে বলল, রাসেল আমার জীবনটা শেষ করে দিছে, আমাকে আর আগের মত ভালবাসেনা, গালাগালি করে ইত্যাদি। তো রাসেল এর সাথে ইদানিং কম দেখা হয়, ওর নাকি কি কাজে ঢাকায় যেতে হয়। আমি ফোন করে বিষয়টা জানতে চাইলে রাসেল বলল আরে একটু মান অভিমান চলে আরকি।

একদিন হঠাৎ রাসেল আমাকে ফোন করে বাজারে নিয়ে এটা ওটা খাওয়াতে লাগল। আমি জানতে চাইলাম বিষয়টা কি? রাসেল বলল কাল সকালে আমি সিঙ্গাপুর চলে যাচ্ছি, তুই মেয়েটাকে এই বিষয়টা এখন জানালে কান্নাকাটি করবে, এমনকি বাড়িতেও চলে আসতে পারে। তার চেয়ে ভাল আমি বিদেশ পৌছা মাত্র ওকে সব বুঝিয়ে বলব, ওতো এখন নাইনে পড়ে, এস এস সি পাশ করুক আমি ছুটিতে এসে বিয়ে করব।

যাই হোক রাসেল বিদেশ যাওয়ার তিনদিন পড়ে মেয়েটি আমাকে ফোন করে বলল কোথায় আছেন? আমি বললাম বাজারে দুলালের হোটেলে। একটু পর মেয়েটি এল, আর আমাকে জড়িয়ে ধরে সেকি কান্না। কান্না থামছেইনা। কান্নাজড়া কন্ঠে বলতে লাগল, আমি রাসেলকে এত বেশী ভালবাসতাম যে ওকে নিজের স্বামি মনে করতাম।, ও আমাকে ১২ দিনের মত আবাসিক হোটেলে নিয়ে ওর ইচ্ছা পূরন করেছে। আজ ও সিঙ্গাপুর থেকে ফোন করে বলে আমি ওকে ভুলে যাইতাম, ভাল কোন ছেলে দেখে বিয়ে করতাম। আপনি বলুন আমি কি করব? দুইটা পাচশত টাকার নোট আমার হাতে ধরিয়ে দিয়ে বলল, এইযে আপনার একদিনের সময়ের মূল্য। আপনার দালালির টাকা। রাসেল এর সাথে প্রেম করার জন্য দালালি করেছিলেন। আপনার সময়ের মূল্য আমি দিয়েছি, এখন আপনি আমার নষ্ট হয়ে যাওয়া জীবনের মূল্য ফিরিয়ে দিন।

মাথা নিছু করে ঐদিন কথার জবাব না দিয়ে ফিরে আসতে হয়েছিল। আজও রাসেল আর আমাকে ফোন করেনি।
(সমাপ্ত)
বিঃদ্রঃ যেখানে আমি আমার কথা লিখছি, সেখানে আমার এক পরিচিত জন ছিল, ওর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক থাকায়, আমার কথা ব্যাবহার করেছি। এবং সংক্ষিপ্তভাবে লেখার চেষ্টা করেছি। ধন্যবাদ, পড়ার জন্য।

(ওমর ফারুক শ্রাবন)

 

সম্পাদনাঃ সোহেল সাইফ

Loading...

Check Also

জঙ্গীদের প্রতি ঘৃনা বাড়ানোর বড়ি!

১) আজ মুসলমান সম্প্রদায়ের এক বড় উৎসব।আমার এধরনের লেখা ঠিক হচ্ছেনা তবু দেশের পরিস্থিতি আমাকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.